Life style: Tips and Tricks

Panjeree guide for class 8 pdf free download | পাঞ্জেরী গাইড class 8 pdf download

আজকে আমরা আপনাদের কে Panjeree guide for class 8 pdf free download | পাঞ্জেরী গাইড class 8 pdf download লিংক দিবো।

Panjeree guide for class 8 pdf free download | পাঞ্জেরী গাইড class 8 pdf download

Class 8 panjeree bangla guide pdf download | পাঞ্জেরী বাংলা গাইড pdf download

Class 8 panjeree mathematics guide pdf download | পাঞ্জেরী গণিত গাইড pdf download

Class 8 panjeree science guide pdf download | পাঞ্জেরী বিজ্ঞান গাইড pdf download

Class 8 panjeree English guide pdf download | পাঞ্জেরী ইংরেজি গাইড pdf download

Panjeree English grammar book pdf download of class 8

Class 8 panjeree bangladesh and world identity guide pdf download | পাঞ্জেরী বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় গাইড pdf download

Class 8 panjeree islam studies guide pdf download | পাঞ্জেরী ইসলাম শিক্ষা গাইড pdf download

Class 8 panjeree hindu studies guide pdf download | পাঞ্জেরী হিন্দু শিক্ষা গাইড pdf download

Class 8 panjeree ICT guide pdf download | পাঞ্জেরী তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি গাইড pdf download

বুক রিভিউ
বইয়ের নাম — বরফ গলা নদীলেখক — জহির রায়হান*
প্রথম প্রকাশ—১৯৬৯
বাসার কাছাকাছি আসতে ওপাশের দোতলা বাড়ি থেকে ঝপ করে একবালতি পানি কে যেন ঢেলে দিলো মরিয়মের গায়ে। সর্বাঙ্গ ভিজে গেল । প্রথম কয়েক মুহূর্ত একেবারে হকচকিয়ে গেল মরিয়ম। সবে গতকাল শাড়িটা ধুয়ে পড়েছে।কে জানে কিসের পানি!!! ভাবতে গিয়ে সারা দেহ রি-রি করে উঠলো।
বাবা হারিকেনের আলোয় বসে বসে খোকনকে পড়াচ্ছিলেন। “হুমায়ুনের মৃত্যুর পর আকবর দিল্লির সিংহাসনে আরোহন করেন।”
মা বললেন,”মরিয়মটা নেই, বাড়িটা কেমন ফাঁকা লাগছে। তুই একটা বিয়ে কর মাহমুদ।
মাহমুদ বলল,”কি দরকার আরেকটা নিরীহ মেয়েকে অমানুষ বানিয়ে”?
ভ্রুজোড়া অদ্ভুতভাবে বাঁকালো মনসুর ।তারপর আস্তে করে বলল, তোমার কি মনে হয়, মানুষ দুবার প্রেমে পড়তে পারে?
বিব্রত মরিয়ম বললো ,পারে!!
” বরফ গলা নদী” জহির রায়হান রচিত একটি বিখ্যাত উপন্যাস । শত্তর দশকের পটভূমিতে রচিত উপন্যাসটি অর্থনৈতিক কারণে বিপর্যস্ত এক ক্ষয়িষ্ণু মধ্যবিত্ত পরিবারের অসহায়ত্ব গাঁথা।
** উপন্যাসটির কেন্দ্রীয় চরিত্রগুলো — মাহমুদ, মরিয়ম, হাসিনা, লিলি, মনসুর, তসলিম, শাহাদাত, আমেনা।
নিতান্তই মধ্যবিত্ত পরিবারের ছেলে মাহমুদ । জীবনের কঠিন বাস্তবতাকে, ধনী-গরীবের মধ্যকার বৈষম্যকে কঠোরভাবে ধিক্কার করে সে। ‘মিলন’ পত্রিকায় চাকরি করে আদর্শ সাংবাদিক হবে। কালে কালে লুই ফিসার হবে!!! কিন্তু না….. দুর্নীতিগ্রস্ত দেশের বিরাজমান রাজনৈতিক পরিস্থিতির চাপে তার সেই স্বপ্ন অচিরেই লোপ পেয়ে যায়। একদিন এই চাকরিটা ছেড়ে দেয় সে। ‘
মাহমুদ’ চরিত্রটি বড়ই বিচিত্র; একই সাথে কঠোর আবার ক্ষণে ক্ষণে কোমল। কখনো কড়া গলায় সে বোনদের শাসন করে, আবার মাইনে বাড়লে সেই টাকা বোনদের জন্যই খরচ করবে, এই ভাবনাও মনে মনে পোষণ করে।
মরিয়ম — সে মাহমুদের ছোট বোন। ইন্টার পরীক্ষা দিয়ে এখন টিউশনি করছে। তার প্রথম যৌবনের একটি ভয়াবহ অতীত আছে, তাই সেলিনার (মরিয়মের ছাত্রী) বোনের দেবর – মনসুরকে সে সহজভাবে নিতে পারেনি। নিতান্তই সহজ-সরল চরিত্রটি পাঠক মনকে বেদনায় ভরিয়ে তোলে।
লিলি — মরিয়মের কলেজ জীবনের বান্ধবী। শিক্ষিতা বুদ্ধিমতী ও শান্ত স্বভাবের এই মেয়েটির চরিত্র শুধু মাহমুদকে নয়, মরিয়ম,হাসিনা এমনকি মাহমুদের মাকেও আকর্ষিত করে। উপন্যাসটিতে ধীরে ধীরে অথচ সুস্পষ্টভাবে মাহমুদের সাথে তার জীবন এগিয়ে চলে।
হাসিনা ; মরিয়ম এর ছোট বোন।সদ্য কৈশোরে পদার্পণ করা মেয়েটি নিতান্তই সহজ -সরল ;সাবলীল তার কথা বলার ভঙ্গি ও আচার-আচরণ!! লিলির ভাই তসলিমের সাথে তার ভালোবাসার গল্পটি আমাদের চিরচেনা কৈশোরকেই মনে করিয়ে দেয়!!
সেলিনার বোনের দেবর মনসুর । ধনী, স্বাস্থ্যবান মনসুরকে মেয়ের জামাই হিসেবে কল্পনা করে সেলিনার মা। কিন্তু মানুষের সব স্বপ্ন কি পূরণ হয় ??? হয়না,,,,,,
মনসুর যে ভালবাসে মরিয়মকে। তার সাথে ভাব করার জন্য কখনো পথ চলার অনাহূত সঙ্গী হয় সে।মরিয়মের অসুস্থতার কথা শুনে ওষুধপথ্য নিয়ে হাজির হয় তাদের বাসায়; দিনের-পর-দিন!! মাহমুদ বাদে ওই পরিবারের সবাইকে সে অভিভূত করে নিজের আর্থিক স্বচ্ছলতায়।
উপন্যাসটির অন্যতম দুটি চরিত্র হলো মাহমুদের বন্ধু শাহাদাত ও বন্ধুপত্নী আমিনা। কঠোর ব্যক্তিত্বসম্পন্ন আমেনা দারিদ্র্যের কারণে না খেয়ে মরতেও রাজি; তবু এক মুহূর্তের জন্যও নিজের আত্মসম্মানকে বিসর্জন দিতে প্রস্তুত নয়!!!
দারিদ্র্যপীড়িত একটি পরিবারের হাসি-কান্নার আলেখ্য হলো জহির রায়হানের উপন্যাস ‘বরফ গলা নদী’। সেখানে আছে সন্তানের স্বাধ আহ্লাদ পূরণে ব্যর্থ বাবার হৃদয়ের আকুতি , পুত্র কন্যার প্রতি মায়ের অমোঘ ভালোবাসা;আছে একটি সুখী জীবনের আশা,যৌবনের একটুকরো ভালোলাগা, আছে হাসি কান্নার অন্তরালে একটুখানি প্রাপ্তির ছোঁয়া।।
ব্যক্তিগত মতামত — একটি দুর্ঘটনা বদলে দিতে পারে হাজারো প্রাণের আশা ভরসা ভালোবাসা।
যতবার পড়ি ততবারই ভালো লাগে
**ব্যক্তিগত রেটিং – পাঁচ
**প্রিয় চরিত্র — মাহমুদ
**অপ্রিয় চরিত্র — মনসুর
**পছন্দের উক্তি–
১. জ্বলে-জ্বলে ক্ষয়ে যাওয়া মোমবাতির মত ধীরে ধীরে ফুরিয়ে যাবে সবকিছু!!!
২. হাজার হোক, চক্ষুলজ্জা বলতে একটা প্রবৃত্তি আছে মানুষের!!
৩. কতদিন বলেছি, বড়লোকের বাচ্চাগুলোকে আমি দেখতে পারি না আর তুমি ওদের সঙ্গে হাওয়া খেয়ে বেড়াও!!
৪. কেরানির জীবনে সঞ্চয় সম্ভব নয়।
৫. গরিব হয়েছি বলে বুঝি সাধ – আহ্লাদ নেই আমাদের??
৬. এ সমাজে বাঁচতে হলে মিথ্যের মুখোশ পড়তে হয়!!

See also  গণিত অলিম্পিয়াডের প্রস্তুতি বই pdf download | Math olympiad bangla books pdf download

বুক রিভিউ
বইয়ের নাম — কাজলের দিনরাত্রি
লেখক — মুহম্মদ জাফর ইকবাল
“কাজলের দিনরাত্রি” মুহম্মদ জাফর ইকবাল রচিত একটি বিখ্যাত কিশোর উপন্যাস। উপন্যাসটির ঘটনাপ্রবাহ শুরু হয় কাজলের মা-বাবার মধ্যকার দাম্পত্য কলহ থেকে যা পরবর্তীতে আচমকাই প্রাচুর্যে বড় হওয়া কাজলের জীবনটাকেই পাল্টে দেয় সম্পূর্ণরূপে।
বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষ ধনী ব্যবসায়ী আলতাফ নবী। তার একমাত্র পুত্র কাজল; বিশাল বিত্তবৈভবে যার জীবন কাটে , মায়ের সাথে যে ছেলেটির দিনরাত খুনসুটি চলছে – একদিন হঠাৎ করেই সে আবিষ্কার করে জীবন তাকে এক কঠিন বাস্তবতায় এনে দাঁড় করিয়েছে।তার সামনে দুটি পথ ; হয় অর্থের প্রাচুর্য কে বরণ করতে হবে নতুবা মায়ের সাথে এক অনিশ্চিত ভবিষ্যৎ কে গ্রহণ করতে হবে।
কাজল কিন্তু অর্থের প্রাচুর্যকে বরণ করেনি। সমাজের একটি উচ্চ আসন ছেড়ে মায়ের হাত ধরে খুশিমনেই বেরিয়ে এসেছে নতুন জীবনের খোঁজে।
এই জীবনে নেই দামি বাড়ি-গাড়ি , নেই কম্পিউটার-টিভি- ফ্রিজ ,নেই মানুষের কৃত্রিম ভালোবাসা। এ জীবনে আছে মধ্যবিত্ত মায়ের ছেলে হয়ে স্বাধীন ভাবে বেঁচে থাকার, পৃথিবীকে অন্যভাবে দেখার,জীবনের প্রতিটি অধ্যায়ে কে অন্যভাবে আবিষ্কার করার এক অনাবিল আনন্দ!!!
ছোট্টু দুই রুমে শুরু হয় কাজল আর তার মায়ের নিতান্তই মধ্যবিত্ত সংসার। একটি সাধারণ বাংলা মিডিয়াম স্কুলে ভর্তি করানো হয় তাকে। সেখানকার ছেলেমেয়েদের অকৃত্রিম বন্ধুত্বে কখনও কাজল হয়েছে বিস্মিত কখনো বা মুগ্ধ, কখনো হয়েছে আবেগে আপ্লুত।
“আমি তপু” উপন্যাসে তপুর জীবনে আমরা যেমন প্রিয়াঙ্কাকে দেখতে পাই,এই উপন্যাসটিতেও কাজলের জীবনে আছে তেমনি তৃণা। কাজল – তৃণার মধ্যকার খুনসুটি,বন্ধুত্ব ,ভালোবাসা কিশোর মনে এক অদ্ভুত রোমাঞ্চ তৈরি করে!!!
বন্ধু বান্ধবদের নিয়ে চমৎকার এক অ্যাডভেঞ্চারের মধ্য দিয়ে শেষ হয় উপন্যাসটি।

কাজলের মায়ের চরিত্রে লেখক এদেশের আর্থিকভাবে পরনির্ভরশীল নারীদের এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।সমাজের অন্য সবাই যেখানে বিত্ত-বৈভবের মোহে নিজের আত্মসম্মান বিসর্জন দিয়ে দিনের পর দিন নির্মম মানসিক যন্ত্রণা ভোগ করতে প্রস্তুত,সেখানে কাজলের আম্মু সব কিছু ছেড়ে পুত্র কাজলকে নিয়ে স্বাধীনভাবে জীবন শুরু করতে দ্বিতীয়বার ভাবেন নি।
* ব্যাক্তিগত মতামত*
উপন্যাসটি যখন পড়ি,আমি তখন সদ্য কিশোরী। ওই বয়সে অসম্ভব ভালো লেগেছিল বইটি।
আজ অনেক দিন পর পরে আবার নতুন করে ভালো লাগলো।
**ব্যাক্তিগত রেটিং পাঁচ
**প্রিয় চরিত্র – কাজল
** বিশেষ দ্রষ্টব্য
কিশোর-কিশোরী যারা বই পড়তে চায় না,,তাদের জন্য স্টার্টিং হিসেবে বইটি বেশ ভালো হবে।

আজকে আমরা আপনাদের কে Panjeree guide for class 8 pdf free download | পাঞ্জেরী গাইড class 8 pdf download লিংক দিয়েছি। আশা করি আপনাদের উপকার হয়েছে।

ADR Dider

This is the best site for all types of PDF downloads. We will share Bangla pdf books, Tamil pdf books, Gujarati pdf books, Hindi pdf books, Urdu pdf books, and also English pdf downloads.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
You cannot copy content of this page