Best Bangla PDF Books

(Best) Bengali to English Translation Book PDF Download

Hello everybody. Today we will share Bengali to English Translation Book PDF Download link. We hope you will enjoy this.

Bengali to English Translation Book PDF download

500 Bengali to English Translation Book PDF

800-important-synonyms-and-antonyms-with-bengali-meaning-pdf-free-download 

Download Bengali to English Translation Book Pdf

বাঙ্গালী তো ইংলিশ ট্রান্সলেশন বুক পিডিএফ পার্ট ৩

ইংরেজি উচ্চারণ শেখার বই PDF Download

500-tense-examples-bangla-english-translation-pdf-with-bengali-meaning 

500-proverbs-with-bengali-meaning-pdf  (পৃষ্ঠা ৪৫, ৯ এমবি) 

ইংরেজি পত্রিকার শব্দার্থ pdf

Bengali to English Translation Part 1

১৩ বছরের কিশোর ১০০ কোটি টাকার মালিক।
উদ্যোক্তা এবং উদ্ভাবনের কোনো নির্ধারিত বয়স নেই। এটি প্রমাণ করেছে তিলক মেহতা। বর্তমানে সে বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ উদ্যোক্তা। এরই মধ্যে নিজ ব্যবসায়ে সফল তিলক ১০০ কোটি টাকার মালিক বনে গিয়েছেন। কারও সাহায্য ছাড়াই নিজ বুদ্ধি ও মেধা খাটিয়ে তিলক গড়ে তুলেছেন নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ডিজিটাল কুরিয়ার সার্ভিস ‘পেপার এন পার্সেল’।
তিলকই এই কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা। ওয়ানডে পার্সেল পরিষেবার লক্ষ্যে একটি ডিজিটাল কুরিয়ার সংস্থা তৈরি করে এই মেধাবী বালক। এর মাধ্যমেই স্কুল বয় থেকে তিলক এখন বিখ্যাত বিজনেস বয়ের তকমা অর্জন করেছেন। এতো অল্প বয়সেই সফল উদ্যোক্তা হয়ে পুরো বিশ্বের মধ্যে তিলক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।
তিলক ভারতের মুম্বাইয়ে বাবা-মায়ের সঙ্গে বসবাস করে। তার বাবা মহেশ মেহতা একটি বেসরকারি কোম্পানিতে চাকরি করেন। তার মা কাজল মেহতা একজন গৃহিণী। তিলকের জমজ দুই বোন আছে।
বর্তমানে তিলক গারোদিয়া ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে অষ্টম শ্রেণির ছাত্র। তিলক কখনোই ভাবতে পারেনি এতো অল্প বয়সেই সে উদ্যোক্ত বনে যেতে পারবে। তার মতে, ‘চোখ-কান খোলা রাখলে শিশুরাও অনেক কিছু জানতে, শিখতে ও করতে পারে।
একদিন তিলকের কয়েকটি বইয়ের খুবই প্রয়োজন ছিলো। তার বাবা মহেশ মেহতা অফিসের কাজে ব্যস্ত থাকায়, ছেলের দরকারি বইগুলো আনতে ভুলে যান। এর পরের দিন তিলক তার বাবাকে জানায়, অনলাইনে বই অর্ডার করে দিলে দ্রুত পাওয়া যেতো।
তবে এ বিষয়ে আপত্তি জানিয়ে তার বাবা জানান, ডেলিভারি চার্জ বইয়ের দামের চেয়ে বেশি হবে। তাছাড়া আজ অর্ডার দিলে হাতে পেতেও কয়েকদিন লেগে যাবে। এরপরই তিলকের মাথায় ধারণা আসে, চাইলে সে একটি নেটওয়ার্ক গড়ে তুলতে পারে। যার মাধ্যমে শহরের বিভিন্ন স্থানে খাবারসহ বিভিন্ন প্রয়োজনীয় জিনিস দ্রুততার সঙ্গে পৌঁছে দেওয়া যায়।
এভাবেই তিলক ২০১৮ সালে ‘পেপারস এন পার্সেল’ নামক একটি স্টার্টআপ গড়ে তোলেন। ‘মুম্বাই ডাব্বাওয়ালা’ দের সহযোগিতায় একদিনেই পণ্য ডেলিভারি দেওয়ার প্রয়াসে শুরু করে ডিজিটাল কুরিয়ার সার্ভিস।
ডোর টু ডোর পিকআপ এবং বিতরণ পরিষেবার মাধ্যমে দ্রুততার সঙ্গে ডেলিভারি করাই এই কোম্পানির মূল লক্ষ্য। কলম থেকে শুরু করে সব ধরনের প্রয়োজনীয় সামগ্রীই পেপার্স এন পার্সেল পৌঁজে দেয় ক্রেতার বাড়িতে। এর মাধ্যমেই মাত্র দুই বছরের মধ্যেই কোটিপতি বনে গেছেন তিলক।
তিলকের স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠান ‘পেপারস এন পার্সেল’ একটি জরুরি মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন। এতে যুক্ত আছেন ২০০ জনেরও বেশি কর্মচারী। এ ছাড়াও ৩০০ জনেরও বেশি ডাব্বাওয়ালা (যারা রেস্টুরেন্ট থেকে খাবার নিয়ে ক্রেতার ঘরে পৌঁছে দেন) এই অ্যাপের মাধ্যমে শহরের বিভিন্ন স্থান থেকে খাবার সরবসরাহ করে থাকেন।
তিলক জানান, ‘প্রতিদিন প্রায় ১২০০ পার্সেল বিতরণ করা হয় এই অ্যাপের মাধ্যমে। পেপারস এন পার্সেল আমার স্বপ্ন। এই প্রতিষ্ঠানের লক্ষ্য হলো- একদিনের মধ্যেই পুরো মুম্বাইয়ের মধ্যে পণ্য ডেলিভারি দেওয়া। এর পরিধি ও ব্যাপ্তি আরও বাড়ানোর প্রয়াসে আমি দক্ষতার সঙ্গে কাজ করব।
২০১৮ সালে তিলক ‘ইয়াং এন্টারপ্রেনার টাইটেল এট দ্য ইন্ডিয়ান মেরিটাইম অ্যাওয়ার্ড’ পুরস্কার জিতে। এ ছাড়াও বিশ্বের প্রতিভাবান শিশুদের স্বীকৃতি হিসেবে অনুষ্ঠিত হয় ‘গ্লোবাল চাইল্ড প্রোডিজি অ্যাওয়ার্ডস’ পুরষ্কার অনুষ্ঠান। যেখানে তিলক মেহতা ২০২০ সালের জানুয়ারিতে গ্লোবাল চাইল্ড প্রোডিজি অ্যাওয়ার্ড জিতেন।
২০২০ সালের মধ্যেই ১০০ কোটি টাকার মালিক হয়েছেন খুদে এই উদ্যোক্তা। তিলক যুবসমাজকে অনুপ্রাণিত করে আসছেন। তার মতে, ‘যেকোনো শিশুই কৌতূহলী হয়ে কী, কেন ও কখন এর উত্তর খুঁজলেই উদ্যোক্তা হতে পারবে। যদিও এ যাত্রায় প্রতিকূলতার মুখোমুখি হতে পারি, তবুও এগিয়ে যাওয়া আরও গুরুত্বপূর্ণ।’

See also  (New) Muhammed Zafar Iqbal Books PDF Free Download | মুহম্মদ জাফর ইকবালের বই PDF Download

The 13-year-old owns 100 crore rupees.
There is no set age for entrepreneurship and innovation. This has been proved by Tilak Mehta. He is currently the youngest entrepreneur in the world. In the meantime, Tilak, who is successful in his business, has become the owner of 100 crore rupees. Tilak has developed his own business digital courier service ‘Paper n Parcel’ by using his intellect and talent without any help.
Tilak is the founder of this company. This talented boy created a digital courier company for the purpose of one-day parcel service. Through this, Tilak has now earned the title of Famous Business Boy from School Boy. Tilak has set an example in the whole world by becoming a successful entrepreneur at such a young age.
Tilak lives with his parents in Mumbai, India. His father Mahesh Mehta works in a private company. His mother Kajal Mehta is a housewife. Tilak has twin sisters.
Tilak is currently an eighth grader at Garodia International School. Tilak never thought he would be able to become an entrepreneur at such a young age. According to him, ‘Children can also learn a lot by keeping their eyes and ears open.
One day Tilak was in dire need of a few books. As his father Mahesh Mehta was busy with office work, he forgot to bring the necessary books for his son. The next day, Tilak told his father that if he ordered the book online, it would be available quickly.

However, his father objected and said that the delivery charge would be more than the price of the book. Moreover, if you order today, it will take a few days to get it. Then Tilak came up with the idea that he could build a network if he wanted to. Through which various necessities including food can be delivered to different places of the city quickly.
This is how Tilak started a startup called ‘Papers n Parcel’ in 2016. In collaboration with ‘Mumbai Dabbawala’, the digital courier service was started in an effort to deliver the goods in one day.
The company’s main goal is fast delivery through door-to-door pickup and delivery services. Papers n parcels deliver all the necessary items starting from the pen to the buyer’s house. Through this, Tilak has become a millionaire in just two years.
Tilak’s startup company ‘Papers n Parcel’ is an urgent mobile application. It has more than 200 employees. In addition, more than 300 Dabbawalas (who deliver food from restaurants to the customer’s house) serve food from different parts of the city through this app.
Tilak said, ‘About 1200 parcels are distributed every day through this app. Papers n parcel is my dream. The goal of this organization is to deliver the product to the whole of Mumbai in one day. I will work efficiently in an effort to further expand its scope and scope.
In 2016, Tilak won the Young Entrepreneur Title at the Indian Maritime Award. In addition, the ‘Global Child Prodigy Awards’ were held in recognition of the world’s most talented children. Where Tilak Mehta won the Global Child Prodigy Award in January 2020.
By 2020, this small entrepreneur has become the owner of 100 crore rupees. Tilak has been inspiring the youth. According to him, ‘Any child can become an entrepreneur by looking for the answer to what, why and when. Although we may face adversity in this journey, it is more important to move forward. ‘

Bengali to English Translation Part 2

কাউকে ছেড়ে আসাটা তোমার কাছে খুব বাহাদুরি। ছেড়ে আসা মানুষের সংখ্যা গুনে তুমি বন্ধুদের সাথে হাসি ঠাট্রায় মেতে উঠো। বন্ধুদের সাথে খুব গর্ব করে বলো জানিস আমি এতটা মেয়েকে ছ্যাঁকা দিয়েছি। আহা! কি মজা। কওো আনন্দ। কিন্তু কালকে যখন তোমাকে অন্য কোন একটা মেয়ে ছ্যাঁকা দিয়ে ছেড়ে চলে যায় তখন তুমি বন্ধুদের সাথে খুব অভিমানের সুরে বলো জানিস ভাই মেয়েরা ভালোবাসার মূল্য বুঝে না। মেয়েরা হলো বেঈমান, প্রতারক, মিথ্যেবাদী, ছলানাময়ী।

See also  কমান্ডো রাজিব হোসেন pdf download | Commando Rajib hossain pdf download

আজ তোমার কষ্ট হচ্ছে তাই না? । ঠিক তুমি যেদিন ভালোসার নামে অভিনয় করে একটা মেয়েকে ছেড়ে এসেছিলে মেয়াটারও সেদিন তোমার মতোই কষ্ট হয়েছিলো । হয়ত তোমার চেয়েও বেশি। কাছের বান্ধুবীটাকে জড়িয়ে ধরে কাঁদতে কাঁদতে হয়ত বলেছিলো জানিস আমি ওকে অনেক ভালোবাসতাম। কিংবা রাতের আঁধারে নিশ্চুপে কেঁদে কেঁদে বালিশ ভিজিয়েছে তোমার জন্য। আর তখন তুমি তাকে ছেড়ে আসার আনন্দে বন্ধুদের সাথে হাসি – আড্ডায় ব্যস্ত ছিলে।

আসলে একটা কথা জানো কি কোন কিছু নিজের সাথে ঘটে যাওয়ার আগ পর্যন্ত তার কষ্ট কিংবা তার গভীরতাটা আমরা উপলব্ধি করতে পারি না। যখন সেই ব্যাপরটা আমাদের নিজেদের সাথে ঘটে তখন আমরা বুঝতে পারি আমরা আসলে অন্যের সাথে ঠিক কি করেছি। কতটা কষ্ট আর কতটা যন্ত্রণা দিয়েছি সেই মানুষটাকে। তাই অন্যকে খারাপ বলার আগে তুমি একটু ভেবে দেখো- আসলে তুমি ঠিক কতটা ভালো!

It is very brave of you to leave someone. Counting the number of people who have left, you laugh with your friends. Tell your friends with great pride that you have burned so many girls. Ah! What fun. What a joy.
But tomorrow, when another girl burns you and leaves you, tell your friends in a very haughty tone, you know, brothers and sisters, girls don’t understand the value of love. Girls are dishonest, deceitful, liars, deceivers.
You’re in trouble today, aren’t you? . Just the day you left a girl in the name of love, Mayatar was in the same trouble as you. Maybe more than you. He hugged his close friend and cried and said that he knew I loved him very much. Or soaking the pillow for you in the dark of night crying silently. And then you were busy laughing and chatting with your friends for the joy of leaving him.
One thing you do know is that we cannot comprehend the pain or the depth of something until it happens to us. When that happens to ourselves we realize exactly what we have actually done to others. How much pain and how much pain I have given to that man.
So before you call someone else bad, think about how good you really are!

See also  [PDF] ঋজুদা সমগ্র ১,২,৩,৪,৫ Pdf Download | Rijuda Samagra 1,2,3,4,5 pdf free download

So today we have shared Bengali to English Translation Book PDF Download link.

ADR Dider

This is the best site for all types of PDF downloads. We will share Bangla pdf books, Tamil pdf books, Gujarati pdf books, Hindi pdf books, Urdu pdf books, and also English pdf downloads.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
You cannot copy content of this page