Bangla uponnas Book PDF

(All) সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের বই PDF Download | Sunil Gangopadhyay Books PDF Download

প্রতিদিনের মত আজকেও আপনাদের অনুরোধের বই সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের বই PDF Download | Sunil Gangopadhyay Books PDF Download লিংক নিয়ে হাজির হলাম।

সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের বই PDF Download | Sunil Gangopadhyay Books PDF Download

কাকাবাবু সমগ্র ১ – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় Kakababu Samogro 1 by Sunil Gangopadhyay

কাকাবাবু সমগ্র ২ – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় Kakababu Samagra Vol 2 by Sunil Gangopadhyay

কাকাবাবু সমগ্র ৩ – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় Kakababu Samagra Vol 3 by Sunil Gangopadhyay

কাকাবাবু সমগ্র ৪ – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় Kakababu Samagra Vol 4 by Sunil Gangopadhyay

কাকাবাবু সমগ্র ৫ – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় Kakababu Samagra Vol 5 by Sunil Gangopadhyay

কাকাবাবু সমগ্র ৬ – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় Kakababu Samagra Vol 6 by Sunil Gangopadhyay

কাকাবাবু সমগ্র ৭ – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় Kakababu Samagra Vol 7 by Sunil Gangopadhyay

আরব দেশে সন্তু কাকাবাবু – সুনীল গাঙ্গুলী Arab Deshe Sontu O Kakababu – Sunil Gangapadhyay

ভূপাল রহস্য – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় Bhupal Rohosyo by Sunil Gangopadhyay pdf

কাকাবাবু ও আগুন পাখির রহস্য – সুনীল গাঙ্গোপাধ্যায় Kakababu O Agun PakhirRahasya free download by Sunil Gangopadhyay

এবার কাকাবাবুর প্রতিশোধ – সুনীল গাঙ্গোপাধ্যায় Kakababur Protishodh pdf bySunil Gangopadhyay

মিশর রহস্য – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় Mishor Rohosso by Sunil Gangopadhyay

খালি জাহাজের রহস্য – সুনীল গাঙ্গোপাধ্যায়

বিজয়নগরের হিরে – সুনীল গাঙ্গোপাধ্যায় Bijaynagarer Hire by Sunil Gangopadhyay

ভয়ংকর সুন্দর – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় Bhoyankar Sundar Comics – Sunil Gangopadhyay

কাকাবাবু ও চন্দ্রনদস্যু – সুনীল গাঙ্গোপাধ্যায় Kakababu O Chadan Dossu pdf bySunil Gangopadhyay

ব‌ই এর নাম :- দ্য দা ভিঞ্চি কোড
লেখক :- ড্যান ব্রাউন
অনুবাদ :- মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন
ধরন :- থ্রিলার
প্রকাশনী :- বাতিঘর
পৃষ্ঠা সংখ্যা :- ৪৩১ পৃষ্ঠা
মুদ্রিত মূল্য :- ৩৮০ টাকা
ব্যক্তিগত রেটিং :- ১০/১০
📝 ভূমিকা:-
সর্বকালের সেরা বিক্রিত ব‌ই “দ্য দা ভিঞ্চি কোড”। বাংলা সহ ৪১টিরো বেশি ভাষায় অনূদিত এবং ১১০ মিলিয়ন কপির‌ও বেশি বিক্রি হয়েছে “ড্যান ব্রাউন” এর লেখা অসাধারণ এই থ্রিলার।
বিখ্যাত কিছু পত্রিকার মন্তব্য –
‘পালস্ বাড়িয়ে মাথা ঘুরিয়ে দেবার মতো একটি অ্যাডভেঞ্চার… ব্রাউন স্মার্ট থৃলারের নতুন মাস্টার’ – পিপল্‌স ম্যাগাজিন।
‘অনেক অনেক বাঁক,রেসিং কারের গতিতে এগিয়ে গেছে এর কাহিনী – সবটাই তৃপ্তিদায়ক, খুবই অপ্রত্যাশিত…এই উপন্যাস যদি আপনার নাড়িস্পন্দন বাড়াতে না পারে তবে আপনার দরকার ডাক্তার দেখানো… খুবই উৎকৃষ্ট মানের বিনোদন’ – ওয়াশিংটন পোস্ট।
📖 কাহিনী সংক্ষেপ:-
দু’হাজার বছরের পুরনো একটি সত্যকে চিরতরে নির্মূল করার জন্য প্যারিসে এক‌ই দিনে হত্যা করা হলো চারজন প্রখ্যাত ব্যক্তিকে। তাদের মধ্যে একজন প্যারিসের লুভর মিউজিয়াম এর কিউরেটর ‘জ্যাক সনিয়ে’।মৃত্যুর আগে দিয়ে গেলেন অদ্ভুত কিছু মেসেজ।
নিজের শরীর দিয়ে তৈরি করেছেন ‘দা ভিঞ্চির’ বিখ্যাত ছবি “ভিটরুভিয়ান ম্যান” এর অনুলিপি। নিজের রক্ত দিয়ে নিজের শরীরে এঁকেছেন পাঁচটি সরল রেখা দিয়ে বানানো একটি পাঁচকোণা তারা,’পেনটাকল’। নিজের মৃতদেহের পাশে নিজেই ওয়াটার মার্ক স্টাইলাস কলম দিয়ে লিখে গেছেন অদ্ভুত একটি মেসেজ, যা পুলিশের বিশেষ লাইট ছাড়া দেখা যাবে না,,,,,
13-3-2-21-1-1-8-5
Oh, Draconian devil!
O’ Lame saint!
জ্যাক সনিয়ে ছিলেন এক সিক্রেট সোসাইটি “প্রায়োরি অব সাইওন” এর সদস্য যারা রক্ষা করে আসছে দু’হাজার বছরের পুরনো এক সত্যকে। সেই সত্য যা উন্মোচিত হলে কেঁপে যাবে একটি প্রতিষ্ঠিত ধর্মমতের ভিত্তি, নতুন করে লিখতে হবে দু’হাজার বছরের ইতিহাস। যেই সোসাইটির সদস্য ছিলেন স্যার আইজ্যাক নিউটন, ভিক্টর হুগো, বত্তিচেল্লি, লিওনার্দো দা ভিঞ্চির মতো বিখ্যাত ব্যক্তিরা।
দুর্ভাগ্যক্রমে হারভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সিম্বোজলির প্রফেসর ‘রবার্ট ল্যাংডন’ ফেঁসে গেল এই খুনের ঘটনায়। ডিসিপিজে’র ক্যাপটেন ‘বেজু ফশে’ দুটো কারণে ধরে নিলেন ল্যাংডন খুনি। প্রথমত মৃত সনিয়ে নিজেই তার দেহের পাশে লিখে গেছেন,
“পি.এস, রবার্ট ল্যাংডনকে খুঁজে বের করো”। দ্বিতীয়ত জ্যাক সনিয়ের সাথে এ্যাপয়েন্টমেন্ট এর কথা তার ডায়রিতে লেখা আছে ঠিক সেই সময় যখন তিনি খুন হন। কিন্ত অদ্ভুত ব্যাপার হচ্ছে ল্যাংডনের সাথে সনিয়ের কখনো দেখাও হয়নি,এটাই হতো তাদের প্রথম সাক্ষাৎ ,,,,,,
ল্যাংডন কে বাঁচাতে এই সময় হাজির হয় ডিসিপিজে’র ক্রিপ্টোগ্রাফার ‘সোফি নেভু’ যে মৃত জ্যাক সনিয়ের নাতনি। সোফি তাকে জানালো তার দাদু মূলত এই মেসেজ গুলো তার জন্যেই রেখে গেছে। পিএস হচ্ছে তার নামের আদ্যাক্ষর ‘প্রিন্সেস সোফি’ যা তার দাদু তাকে ডাকতেন। দাদু কেন ল্যাংডনকে খুঁজে বের করতে বললেন এই রহস্য সমাধানের জন্য সোফি ল্যাংডনকে নিয়ে পুলিশের হাত থেকে পালিয়ে গেল লুভর মিউজিয়াম থেকে।
কী মেসেজ দিয়ে গেছে সনিয়ে তার নাতনিকে??কে খুন করলো জ্যাক সনিয়ের মতো বিখ্যাত মানুষকে??সনিয়ে কী সেই সিক্রেট দিয়ে গেল তার নাতনিকে যা রক্ষা করা হচ্ছে হাজার বছর ধরে??কী সেই সিক্রেট যা ছিনিয়ে নেওয়ার জন্য চারজন বিখ্যাত মানুষকে খুন হতে হলো?? ল্যাংডন কে খুঁজে বের করতে বললেন কেন তিনি??
যদি আপনিও খুঁজে বের করতে চান রহস্যের ভেতরের রহস্য, ধাঁধার ভেতরের ধাঁধা,কোডের ভেতরের কোড, তাহলে আপনাকে অবশ্যই পড়তে হবে দ্য দা ভিঞ্চি কোড,,,,,,
❣️পাঠপ্রতিক্রিয়া :-
এই ব‌ইটি লেখার জন্য লেখককে কী পরিমাণ গবেষণা, পড়াশোনা, পরিশ্রম করতে হয়েছে সেটা ব‌ইটা পড়লেই বোঝা যায়। লেখকের দাবি অনুযায়ী ব‌ইয়ে উল্লেখিত সমস্ত শিল্পকর্ম, স্থাপত্যশৈলি, দলিল-দস্তাবেজ, গুপ্ত সংগঠন, গুপ্ত ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠানের বিবরণ কাল্পনিক নয়, সম্পূর্ণ সত্য। এবং চাইলে আপনিও যাচাই করে দেখতে পারেন।
এই ব‌ইটি মূলত খ্রিস্টান ধর্ম এবং যিশুখ্রিস্টের জীবন নিয়ে হাইপোথিসিসের ভিত্তি করে রচিত। লেখক খুব সূক্ষ্মভাবে সত্যের সাথে কল্পনাকে মিক্স করছেন। এতোটাই সূক্ষ্মভাবে মিক্সড করছেন যে তার সেই কল্পনাকেও অনেক সময় সত্যি মনে হয়। ব‌ইয়ের প্রতিটি পাতায় আছে প্রচুর পরিমাণে তথ্য আর টুইস্ট।আছে দা ভিঞ্চির বিভিন্ন ছবির রহস্যময় দিকের ব্যাখ্যা, ইতালির বিখ্যাত সব স্থাপনার অসাধারণ বর্ননা। লেখক খুব ভালো করেই জানেন কিভাবে পাঠককে ধরে রাখতে হয়। ওয়াশিংটন পোস্টের সেই মন্তব্যটা এই ব‌ই সম্পর্কে একদম যথার্থ, “এই উপন্যাসটি যদি আপনার নাড়িস্পন্দন বাড়াতে না পারে তবে আপনার দরকার ডাক্তার দেখানো,,,,,,,
যখনি আমার মনে হ‌ইছে এরপর আর কিছু নাই তখনি নতুন একটি মোড় শুরু হইছে।যখনি ভাবছি ধাঁধার সমাধান করা হয়ে গেছে তখনি নতুন আরেকটি ধাঁধার সামনে পড়ে গেছি। আর এভাবেই শেষ পাতা পর্যন্ত পড়তে বাধ্য করছেন লেখক।
একটা পাতাও যদি কেউ স্কিপ করে যায় তাহলেই সে ব‌ইয়ের অনেক কিছুই বুঝতে পারবে না। প্রতিটি তথ্য নতুন একটি তথ্য বোঝার জন্য সহায়তা করবে।তাই অধৈর্য পাঠকদের অনুরোধ করবো ধৈর্য ধরে মনযোগ দিয়ে পড়বেন। একবার ব‌ইয়ের ভেতরে ঢুকে গেলে আর বের হতে পারবেন না শেষ না হওয়া পর্যন্ত।
সবাইকে ধন্যবাদ ❤️❤️
ঘরেই থাকুন,বেশি বেশি ব‌ই পড়ুন ❤️❤️
Stay Home, Be Safe ❤️❤️
ব‌ই হোক সব সময়ের সঙ্গী ❤️❤️
Happy Reading ❤️❤️

See also  অনুভূতির অভিধান তাহসান খান PDF Download | Onuvutir ovidhan PDF Download

বই: ইনফার্নো
লেখক:ড্যান ব্রাউন
অনুবাদ : আদিব হোসেন
মনে করুন একটা সুইচ আছে, এটা টিপলেই পৃথিবীর অর্ধেক মানুষ মরে যাবে। আপনি কি সুইচটা টিপবেন??
কি ভাবছেন? আপনি কেন খামাখা এই সুইচ টিপতে যাবেন!বেশ, এবার মনে করুন সুইচটা না টিপলে পৃথিবীর সব মানুষ মরে যাবে আগামী একশো বছরের মধ্যে! তাহলে এবার কি সুইচটা টিপবেন?
জানেন তো, দান্তের ইনফার্নো অনুসারে, “নরকের সবচেয়ে নিকৃষ্ট জায়গা বরাদ্দ থাকবে তাদের জন্য, যারা মানুষের চরম বিপদের দিনে নিরপেক্ষতার মুখোশ পরে থাকে!!”
জনসংখ্যা সমস্যা বর্তমান পৃথিবীর সবচেয়ে ভয়াবহ সমস্যা ।WHO এর হিসাব অনুযায়ী জনসংখ্যা যেভাবে বাড়ছে তাতে এই শতাব্দীতেই পৃথিবীর জনসংখ্যা বেড়ে হবে 9 বিলিয়ন! ফলে কি হবে? খাদ্য, বাসস্থান, পানি এসবের উপর প্রচন্ড চাপ পড়বে। যা শুধু মানুষের দেহ না আত্মাকেও শেষ করে দেবে। একসময় পৃথিবীতে মানুষ এত বেশী হয়ে যাবে আর খাদ্য বাসস্থান এত কম হয়ে যাবে যে ভালো মানুষ গুলোও খারাপ হয়ে যাবে। যে কখনো চুরি করার কথা ভাবেনি সেও চুরি করবে। টিকে থাকার জন্য নিরীহ মানুষটাও অন্যকে খুন করবে।
সুতরাং জনসংখ্যা সমস্যা নিয়ে গভীরভাবে ভাবার সময় এসে গেছে!
উপরের কথাগুলো বারট্রান্ড জোবরিস্টের ,বিখ্যাত বায়োকেমিস্ট বারট্রান্ড জোবরিস্ট যাকে এই গল্পের ভিলেন ও বলা যায় আবার নায়ক ও! যে কিনা জীন প্রযুক্তির ক্ষেত্রে প্রভূত উন্নতি সাধন করেছে, যার ফলে মানুষের আয়ু দীর্ঘায়িত হচ্ছে উল্লেখযোগ্য ভাবে। সেই বারট্রান্ড ই একসময় খেয়াল করে তার এই আবিষ্কার মানবজাতির জন্য আশীর্বাদ নয় বরং অভিশাপ! দান্তের ভক্ত এই জিনিয়াস তার ভুল শুধরে নিতে চায়! বোতলের ভুতটাকে বোতলে ভরার এমন উপায় সে বের করে যা আরো ভয়াবহ! এমন এক ভাইরাস সে আবিষ্কার করে যার দ্বারা এই জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রন সম্ভব! কিন্তু কি সেই ভাইরাস?? তা কি প্লেগ ভাইরাসের মত ভয়াবহ কিছু? কিভাবে তার হাত থেকে উদ্ধার করা যায় মানবজাতি। আত্মহত্যার আগে বারট্রান্ড যে ক্লু রেখে গেছে তা থেকে সেই ভাইরাস খুঁজে বের করে তা আটকানোর জন্য দায়িত্ব দেয়া হয় হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সিম্বলজির অধ্যাপক রবার্ট ল্যাংডন কে। রবার্ট কি পারবে তা খুঁজে বের করতে? মানবজাতিকে মহামারীর হাত থেকে বাঁচাতে!
এই গল্পের মজার ব্যাপার হলো অর্ধেক পড়ার পর আবার শুরু থেকে পড়তে ইচ্ছা হবে! কারণ এতক্ষণ যা যা দেখে আসছেন সবই 360 ঘুরে যাবে এখানে এসে! তখন শুরু থেকে পড়তে গেলে মনে হবে কেউ লেখাটা পড়ার মাঝেই বদলে দিয়েছে! আমার তাই মনে হয়েছে! সর্বোপরি এই বই পড়তে গেলে অনেক কিছু জানার ব্যাপারে আগ্রহ তৈরী হবে, তার মধ্যে, দান্তে , তার ডিভাইন কমেডি, বত্তিচেল্লি, মাইকেল অ্যান্জেলো, লরেন্জো প্রভৃতি কালজয়ী কবি, চিত্রকর , এছাড়াও বিভিন্ন প্রসিদ্ধ ভাস্কর্য, স্থাপত্য, ইতিহাস, মোটকথা এটার মধ্যে দিয়ে একসাথে থ্রিল, রহস্য ,ইতিহাস, সিম্বোলজির জগত থেকে ঘুরে আসা যাবে সাচ্ছন্দে। আগ্রহ তৈরী হবে অনেক কিছুতে, জানতে ইচ্ছা করবে অনেক কিছু! ভাবতেও!!
ফুটনোট : দ্বিতীয় রিভিউ। ড্যান ব্রাউনের এই একটাই পড়লাম, আদিব হোসেনের অনুবাদ ও প্রথম ! অনুবাদ পড়ছি মনেই হয়নি। যেহেতু দ্যা দ্যা ভিঞ্চি কোড, আর লস্ট সিম্বল পড়া হয়নি তাই রবার্ট ল্যাংডন, আর ড্যান ব্রাউনের সাথে প্রথম পরিচয়! আশা করছি পরিচয় গাড়ো হবে। 😊
ভুল ত্রুটি ধরিয়ে দিলে খুশি হব! Happy Reading 😊

See also  [PDF] ইন্দুবালা ভাতের হোটেল পিডিএফ ডাউনলোড PDF Download | Indubala Vater Hotel book pdf free download

অতি আগ্রহের বই সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের বই PDF Download | Sunil Gangopadhyay Books PDF Download লিংক পেয়ে আশা করি খুশি হয়েছেন।

ADR Dider

This is the best site for all types of PDF downloads. We will share Bangla pdf books, Tamil pdf books, Gujarati pdf books, Hindi pdf books, Urdu pdf books, and also English pdf downloads.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
You cannot copy content of this page