(All) আউটসোর্সিং শেখার বই pdf download

(All) এইচ টি এম এল শেখার বই pdf download | Html bangla pdf book free download

হ্যালো জনগন। আজকে আমরা আপনাদের কে আপন্নাদের অনুরোধের বই এইচ টি এম এল শেখার বই pdf download | Html bangla pdf book free download লিংক দিবো।

এইচ টি এম এল শেখার বই pdf download | Html bangla pdf book free download

মিজানুর রহমান এর এইচ টি এম এল শেখার বই ডাউনলোড করুন (Click here)

আব্দুল্লাহ আল ফারুক এর এইচ টি এম এল শেখার বই ডাউনলোড করুন

থৃ মিষ্টেকস্ অফ মাই লাইফ
লেখক-চেতন ভগত
ব্যাক্তিগত রেটিং ৭/১০
আচ্ছা একটা মানুষ জীবনে কয়টা ভূল করতে পারে? সংখ্যা’য় কি লেখে রাখা সম্বভ বা মনে রাখা সম্ভব? কোন একটা অথেনটিকে পড়েছিলাম “আমরা ভূলের মাধ্যমে বেড়ে উঠেছি”। অন্যদিকে লেখক চেতন ভগত তার তৃীতয় বই ‘থৃ মিষ্টেকস্ অফ মাই লাইফ’ লিখে ফেলেছেন! এত এত্ত ভূলের মধ্যে মাত্র তিনটা ভূল নিয়ে কেন একটা মানুষ বই লিখবেন, বইয়ের নাম শুনে নিজেই নিজেকে প্রশ্ন করছি? যেই ভূলগুলোর জন্য একটা বই লেখা হয়। মাত্র তিনটা ভূল কি? এই তিনটা ভূল সম্পর্কে জানার জন্য প্রায় ২২৭ পৃষ্ঠার আস্ত একটা বায়োগ্রাফ পড়তে হবে! ব্যাক্তিগতভাবে আমি বায়োগ্রাফ/অটোবায়োগ্রাফ এর প্রতি আলাদা একাটা সফ্ট কর্ণার রয়েছে, কিন্তু আগ্রহের মতো করে বায়োগ্রাফ/অটোবায়োগ্রাফ বই পড়ার সংখ্যা ততটাই আমার আশাহতঃ।
তিনটা বন্ধু! তিনটা ভূল!

তিন বন্ধু’ই বইয়ের প্রানবিন্দু। বইটা’তে সংগ্রাম, ঘুরে দাড়ানো, আত্মপ্রত্যয়, মনোবল, রাজনীতি, ধর্মচর্চা, ধর্মান্ধতা,দূৃৃর্যোগ,প্রনয় উপখ্যান,স্বপ্ন,দাঙ্গা,বিশ্বাসঘাতক,মানবধর্ম সব কিছু মিলে একটা মাষ্টারপিস মনে হয়েছে আমার কাছে। অনেক পাঠক হয়তোবা ভাবতে পারেন I’ve no good taste about book- বাট সর‍্যি টু স্যে দুর্দান্তরকমের একটা বই ছিলো।
তিন বন্ধু অমি,ইশান,গোবিন্দ! তিনবন্ধুর স্পেশালটি ছিলো ইশান জেলাপর্যায়ের ক্রিকেটার, গোবিন্দ স্টুডেন্ট হিসেবে খুবই ভালো যার দরুন টিউটর হিসেবে ভালো চাহিদা ছিলো অন্যদিকে অমি ধার্মিক গোছের ছেলে-হতে চেয়েছিলো বাবার মতো পুরোহিত
তিন বন্ধু মিলে নতুন উদ্যোগে দোকান গড়ে তোলা। আত্মপ্রত্যয়ে হতে চেয়েছিলে অনেকগুলো দোকানের মালিক। শহরের সবচাইতো বড় মলে দোকান গড়ার স্বপ্ন! সেই স্বপ্ন ভুঃকম্পনের ফলে স্বপ্নের মতো বিধ্বস্ত হওয়া।

সেখান থেকে আবার ঘুরে দাড়ানো। তার মাঝে আরেকজনের আগমন ঘটলো “আলী” যে প্রকৃতিপ্রদত্ত আলাদা সহজাত ক্ষমতা নিয়ে জন্ম নিয়েছিলো। “আলী” শুধু ৩ টা বল-ব্যাট করতে পারতো তাও শুধু বাউন্ডারী। এই বাউন্ডারী ছিলো আলাদা যা অন্য খেলায়াড়ের থেকে আলাদা। এবং ইশান “আলী”কে কোচিং করাতো। সেই “আলী” কে ইন্ডিয়ার জাতীয় দলে খেলানোর জন্য অষ্ট্রোলিয়া পাড়ি জমিয়েছিলে তিন বন্ধু। ঠিক এই জায়গাটা থেকে গল্পের টুইষ্ট শুরু হয়। ইশানের বোন কে গোবিন্দ প্রাইভেট পড়ান। কিন্তু ইশের বোন গোবিন্দের প্রনয়ে মর্মাহত,পাশাপাশি গোবিন্দ ও! একদিকে গোবিন্দের অস্পৃর্শ মানসিক চাহিদা অন্যদিকে বন্ধুর সাথে বিশ্বাসঘাতকতা! কিন্তু প্রণয়আখ্যানে বাধার সৃষ্টি হবে না? অবশ্যই হবে তা জানতে হলে বইটা পড়তে হবে।
বইটার সবচেয়ে আর্কষনীয় মূর্হুত শেষের দিকে- যেখানে ধর্মের নামে অন্যদের খুন করা হয়।

See also  CSS শেখার বই PDF Download | CSS Bangla tutorial pdf free download

আচ্ছা ব্রীফলি তুলে ধরি।
অমি’র মামা ছিলেন পাতিনেতা, যে সাম্প্রদায়িকতা বিষ ছড়াতেন। সেই মামার ছেলে একদা ট্রেনে আসার সময় মুসলিমরা পুরা ট্রেনের বগিতে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে করে অমি’র মামা’র ছেলে মারা যায়, এতে করে অমি’র মামা ক্ষিপ্ত হয়ে আলীর বাবা-মা দুজনকে ত্রিশূল দিয়ে হত্যা করে(আলীর বাবা রাজনীতি করতো সতন্ত্র থেকে)
এবং সবিশেষ আলী কে খুন করার জন্য তিনবন্ধুর কাছে হানা দেয়। তিনবন্ধু আলীকে বাচাঁনোর জন্য অনেক পদ্ধতি অবলম্বন করে। কিন্তু আলীর বদলে অমি’র মামা অমি কে খুন করে। তারপর ও গল্পের টুইষ্ট আছে। আর এত্তকিছু জানার জন্য বইটা পড়া আবশ্যক।
আচ্ছা তিনটা কি ভূল ছিল? যার জন্য একটা বই লেখা হয়েছে? আর আমি ও রিভ্যিউয়ের নামে ছাই-পাশ লেখছি।
১ম মিষ্টেক- ঝন নেওয়া
২য় মিষ্টেক- বইটা পড়া অাবশ্যক (পুনশ্চ -আমি ২য় মিষ্টেকটা পড়ে বই টা পড়ার প্রতি বেশি অনুপ্রানিত হইছি)
৩য় মিষ্টেক- এক মূর্হুতের জন্য আলীর সহজাত ক্ষমতার বিনষ্টকরন।
“থৃ মিষ্টেক অফ মাই লাইফ” বইয়ের কিছু উক্তি-
“১/ নিজের চাইতে বেশি স্মার্ট লোকের সাথে কথা বলতে গেলো জীবনটা কঠিনই হয়ে যায়।
২/ বয়স্ক লোকগুলোর নিজেদের কাম প্রবণতা ঢাকার জন্য একটা ভাল উপায় আছে। আপনাকে হয়ত তার নিজের ছেলে বা মেয়ে বলে ডাকবে।
৩/ মেয়েদের ব্যাপারে একটা ভাল দিক হচ্ছো, আলাপচারিতায় বিরতির মাঝেও আপনি তাদের দিকে তাকাতে পারেন এবং এজন্যে কোন একঘেয়েমি আসবে না।
৪/ মেয়েদের মন না পাওয়ার একটা কারন আছে। কিভাবে কথা বলতে হয় ভাল ছাত্ররা তা জানেনা।
৫/ গালাগালি করা,এটা ও তো একটা সাধ-আহ্লাদ”
হ্যাপী রিডিং -স্প্রেড হ্যাপীনেস

কখনো ভেবে দেখেছেন, একজন নাস্তিক মানুষের মন কতোটা মেঘাচ্ছন্ন থাকে? কতোটা অন্ধকার তার অন্তরকে গ্রাস করে রাখে বলে সে স্রষ্টার নিখুঁত ব্যবস্থাপনাশৈলী ও মহিমাগুলোকে অস্বীকার করতে পারে?
কিন্তু আমাদের রব পরম করুণার আধার। তিনিও চান তাঁর বান্দার অন্তরের মেঘ কেটে যাক। তিনিও চান বান্দা বলুক, “হে আল্লাহ, আমি তো শুধু তোমাতেই বিশ্বাসী, আমার সব বন্দনা তো শুধু তোমারই।”

See also  এইচটিএমএল এর সকল ট্যাগ pdf | HTML Tag list Bangla pdf download

আল্লাহ তাঁর এই পথহারানো বান্দাদের সঠিক পথ দেখানোর কাজে নিযুক্ত করেন তাঁর প্রিয় মুমিনদের, যারা তাদের অফুরান প্রেম, দরদ আর সবর নিয়ে এই নাস্তিক ভাইদের মনের মেঘ কেটে দেন, তাদেরকে দেন আলোকঝরা সুদিনের সন্ধান।
লেখক ড. হুসামুদ্দীন হামিদ আল্লাহর এমন একজন প্রিয় মুমিন, যার হাত ধরে আবুল হাকাম নামের এক পূর্ণ নাস্তিক পুনর্জন্ম লাভ করেন আল্লাহর পথে। আমরা এক মুসলিম হয়ে যেখানে নিজের আশেপাশের মুসলিমদেরই দ্বীনের দাওয়াহ দিতে পারি না, সেখানে লেখক দিনের পর দিন, মাসের পর মাস সম্পূর্ণ চোখের আড়ালে থেকে নিরলসভাবে একজন অপরিচিত নাস্তিক ভাইকে ডেকে গিয়েছেন আল্লাহর দিকে।

ইহজগৎ এর প্রকৃত স্রষ্টার অস্তিত্ব ও পরিচয় নিয়ে তীব্র সংশয় যেখানে আবুল হাকামকে কাবু করে রেখেছে নাস্তিকতার থাবার নিচে, লেখক সেই সুযোগে একের পর এক চ্যালেঞ্জের মারপ্যাঁচে আটকে ফেলেন তাকে। নিজের দৃঢ় বিশ্বাস, ধৈর্য আর ভালোবাসা দিয়ে আবুল হাকামের মনের একের পর এক সন্দেহের মেঘ কেটে দেন তিনি।
কি এমন হাতিয়ার ব্যবহার করেছেন লেখক এখানে, যাতে একজন গোড়া নাস্তিকের মনের সব অহম কেটে গিয়েছিলো? ধারণা করতে পারেন?
সেই হাতিয়ার ছিলেন জগতের সেরা মানুষটি, হযরত মুহাম্মদ (স)। সেরা এই মানুষের জীবনদর্শন দিয়েই লেখক তার নাস্তিক ভাইটিকে দিয়েছিলেন প্রকৃত রবের সন্ধান।
কিন্তু কিভাবে? কিভাবে শুধুমাত্র একজন মানুষের উদাহরণ দিয়ে তিনি আবুল হাকামকে রবের সান্নিধ্যে নিয়ে গেলেন?? খুব সহজ ছিলো কি তার এই দাওয়াহর যাত্রা??

বইটি এটি নিয়েই।
আগেই বলে রাখি, বইটি পড়লে আপনাদের কিছু সুন্দর ব্যাপারে ধারণা হবে, যেমন-
১. কিভাবে একজন নাস্তিক/নামেমাত্র মুসলিমকে দ্বীনের দাওয়াহ দিতে হয়।
২. দাওয়াহ দেয়ার পুরো যাত্রায় কিভাবে সবর রাখতে হয়।
৩. নবীজি (স) কতোটা স্বার্থহীন ও ত্যাগী হয়ে তার দাওয়াহ কাজ চালিয়েছেন।
৪. কিভাবে আল্লাহ সমগ্র কুরআনে যুগে যুগে তাঁর একক অস্তিত্বের কথা বলে গিয়েছেন প্রমাণসহ।
৫. আমাদের বর্তমান বিজ্ঞানের যথাযথ প্রমাণ ছাড়াই কিভাবে তৎকালীন জনগণ বিজ্ঞানের ঘটনাবলী আগে থেকেই জানতো।
বইয়ের নামটা যে এত বেশি চলনসই বইয়ের প্রেক্ষাপটের সাথে, তা ভেতরটা না পড়লে বোঝা যায় না। বিভিন্ন কঠিন টার্ম ও বিষয়ের সুন্দর ব্যাখ্যা দেয়া আছে জায়গামতো। এক্ষেত্রে অবশ্য সম্পাদকের ভূমিকা অতুলনীয়। বিভিন্ন কঠিন পরিভাষাকে পাঠকসমাজের কাছে বোধগম্য করে তোলার প্রয়াস এ বইয়ে স্পষ্ট। বইটি অনুবাদ হওয়া সত্বেও অনুবাদকের নিপুণ ভাষাশৈলী পাঠককে মাদকের মতো আটকে রাখে, পাঠকের মনের গভীরে সূঁচ গেঁথে দেয়। শুধু তাই নয়, বইয়ের প্রারম্ভ, অনুবাদক, সম্পাদক ও লেখক প্রত্যেকেই তাদের ভূমিকায় এতো সুন্দর আহ্বানে পাঠককূল কে ডেকেছেন, সাড়া না দিয়ে পারা যায় না। বইয়ের প্রচ্ছদটাও যেনো এক কথায় প্রশান্তির সঞ্চারক।
বইটা শেষ করে একটা ভাবার্থেই আসতে বাধ্য-
“সত্য এসেছে এবং মিথ্যা বিলুপ্ত হয়েছে। নিশ্চয়ই মিথ্যা বিলুপ্ত হওয়ারই ছিলো।”- বনী ইসরাঈলঃ৮১
আর এটিই হচ্ছে বইয়ের প্রথম লাইন…❣️
বই- মেঘ কেটে যায়
লেখক- ড. হুসামুদ্দীন হামিদ
অনুবাদক- আব্দুল্লাহ মজুমদার
সম্পাদক- ডা. শামসুল আরেফীন
উস্তায আকরাম হোসাইন
প্রকাশন- সমকালীন
পৃষ্ঠা -১৫৫
মূল্য- ২৬৮/-
রেটিং- ৪/৫

See also  (All) জাভাস্ক্রিপ্ট বই PDF Download | Javascript Bangla pdf book free download

ত আপনাদের অনুরোধের বই এইচ টি এম এল শেখার বই pdf download | Html bangla pdf book free download লিংক দেওয়াতে আশা করি খুশি হয়েছেন।

ADR Dider

This is the best site for all types of PDF downloads. We will share Bangla pdf books, Tamil pdf books, Gujarati pdf books, Hindi pdf books, Urdu pdf books, and also English pdf downloads.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
You cannot copy content of this page