Life style: Tips and Tricks

৩য় শ্রেণীর ইংরেজি গাইড pdf download | Class 3 english guide book pdf download

আজকে আমরা আপনাদের কে ৩য় শ্রেণীর ইংরেজি গাইড pdf download | Class 3 english guide book pdf download লিংক দিবো।

বইঃ- ৩য় শ্রেণীর ইংরেজি গাইড pdf download | Class 3 english guide book pdf download

Type:- Text Book

Size: 2 MB

বই: মা
লেখক : ম্যাক্সিম গোর্কি
অনুবাদ:পুষ্পময়ী বসু
প্রকাশনী :শিখা প্রকাশনী
পৃষ্ঠা সংখ্যা :২৮৬

জগতে যা কিছু সত্য, সুন্দর তার পিছনে থাকে কোন না কোন হৃদয় নিংড়ানো করুন কাহিনি। এই সত্য এই সুন্দর কে প্রতিষ্ঠা করার জন্য বিসর্জন দিতে হয় কিছু মহামানবের মহান জীবন। ঠিক অামাদের অাজকের উপন্যাস ও “ম্যাক্সিম গোর্কি ” রচনা করেছেন সেইরকম অনেকগুলো মানুষের অাত্মত্যাগ,দেশপ্রেম নিয়ে।

এই নিষ্ঠুর জগতে কেউ কাউকে ছেড়ে দেয়না,বিশেষ করে “ধনী ” নামের কসাইগুলো প্রতিনিয়ত শোষণ করে যাই শ্রমিক নামের মহামানবদের।যারাই সভ্যতার স্থপতি তারাই সবসময় হয়ে এসেছে নিপিড়ীত, নিগৃহীত। ঠিক এই জিনিসটিই ঘটেছিল রাশিয়ান বিপ্লবের প্রাক্কালে।

অামাদের অাজকের উপন্যাস শুরু হবে শ্রমিকদের দিনাতিপাত দিয়ে।তাদের দিন শুরু হয় কারখানার বাঁশি দিয়ে।কাঁপা -কাঁপা, কর্কশ, লম্বা হুইসেল শ্রমজীবীদের উপরের ধূম-ধূসর পরিম্লান অাকাশকে ছেয়ে ফেলে।যন্ত্রদানবের এই নিষ্করুণ অাহ্বানে জন্তুর মত এগিয়ে চলে-অনিদ্রাই,অাল্প-নিদ্রাই কাঠ হয়ে থাকা জীর্ণ শরীর নিয়ে।যেখানে তাদের জন্য অপেক্ষা করছে বড় বড় পাথরের নিষ্ঠুর খাঁচাগুলো। সন্ধ্যাবেলা যখন সূর্য অস্ত যায়, অস্ত -সূর্যের রক্ত অালো যখন এসে পড়ে বাতায়নে, তখন বের হয় এরা।এরা যেন মানুষ নয় অন্ধকার মুখ, ধোয়ায় ধূসর, কল চালানো তীব্র তেলের গন্ধ, ক্ষুধার্ত দাতগুলো জ্বলতে থাকে অাভাহীনভাবে।এই তাদের দিন,।
ছুটির দিনে তারা দশটা পর্যন্ত ঘুমায়,বিবাহিতরা ও শান্তপ্রকৃতির লোকেরা পরিষ্কার হয়ে উপসনালয়ে যায়,তারপর পান করে রুশজাতির মোহনভোগ “পিরগ”।
তারপর সন্ধ্যা পর্যন্ত অাবার ঘুম।
রাতভর চলে ভদকার অায়োজন, বাজনা বাজে, সৌন্দর্যের নাম গন্ধহীন অশ্লীল গান চলে,। তারপর বাড়িতে ফিরে স্ত্রীদের উপর চলে কব্জির জোর পরীক্ষা।
এমনিভাবে জীবন-যাপন করে,পঞ্চাশ বছর বয়সে একজন শ্রমজীবী এই ধরা থেকে মুক্তি নেয়।
এই তাদের জীবন….!

See also  Panjeree guide for class 6 pdf download | পাঞ্জেরী গাইড class 6 pdf download

ঠিক এমনই জীবন -যাপন করে যাই ” মিখাইল ভ্লাসভ” নামের একজন নিষ্ঠুর মানবে পরিণত হওয়া শ্রমিক। যে কিনা অামাদের উপন্যাসের নায়ক “পাভেল ভ্লাসভ” এর জন্মদাতা এবং সবার “মা” হয়ে উঠা পাভেল ভ্লাসভ এর মা ” “পেলগয়া নিলাভনা”
এই মিখাইল ছিল নিঃসঙ্গ একজন বিভৎস মানুষ, যে কিনা তার স্ত্রীকে সারাজীবন নির্যাতনই করে গেছে, ঐইটুকু সুখ দেইনি “মা” কে।অার ছেলে পাভেলের কোন খোজই সে রাখতোনা।
একদিন সেই ভ্লাসভ ও চলে গেল সব ছেড়ে, হাফ ছেড়ে বাচ ল “মা”।
কিন্তু ছেলে পাভেল ও যে বাপের পেশা ধরল।একদিন মদ খেয়ে মাতাল হয়ে মায়ের প্রতি বাপের মত অাচরন করা শুরু করল।
এইভাবেই দিন যায় মা এর।পাভেল ভোরে কারখানায় যায় সন্ধ্যায় অাসে। এ অার নতুন কি.!
কিন্তু ” মা” খেয়াল করল তার পাভেল তার সাথে ভালো অাচরন করে,মাস শেষে সব মাইনে মায়ের হাতে তুলে দেয়,যা বস্তীর অার কোন ছেলে করেনা,কেউ করেওনি। মা একদিকে খুশি ছেলের এই পরিবর্তনে, অন্যদিকে বুঝেও না কেনো…?
কারন হলো পাভেলে যে সোনার মানুষের স্পর্শ পেয়েছে।
পেয়েছে শিকল ভেঙে মুক্ত হবার অাহ্বান।পেয়েছে স্বাধীনতার স্বাদ,বুঝতে পেরেছে অধিকার।

সেই সময় রাশিয়ায় বিপ্লববাদ অত্যন্ত প্রবল হয়ে উঠেছিল।পাভেল তখন সবকিছু ত্যাগ করে যোগদান করে সংগঠনে।তার ঘরে গোপনে মন্ত্রণাসভা বসত।কাগজে বিদ্রোহের কথা লিখে তা বিলি করা হত।পাভেলের মা সব বুঝেন, এ ও বুঝেন এতে পাভেলের প্রাণ সংশয় অাছে, হতে পারে নির্বাসন। সব জেনেও ছেলের সৎ কাজের অনুমোদন করেন,এবং নিজে বৃদ্ধ বয়সে এতে পূর্ণোদ্দমে যোগদান করেন।সন্তানের জীবনের মায়া,অাশান্তি অত্যাচারের ভয় কিছুই তাঁকে ঠলাতে পারলোনা।তিনি দলের সকলের “মা” হয়ে কাজ চালাতে লাগলেন। ক্রমেই পুলিশ সন্দেহ করতে লাগল এবং পাভেল ও অারো অনেকে একদিন ধরা পড়ল।বিচার নামের প্রহসনে তাদের নির্বাসন হল সাইবেরিয়ায়।
বৃদ্ধা জননী তখন কাপড়ের পুঁটলির মধ্যে পাভেলের লেখা প্রচারপত্র নিয়ে বিলি করার জন্য প্রস্তুত হলেন।কিন্তু রেলস্টেশনে ভাগ্যের পরিহাসে ধরা পড়লেন তিনি।এইখানেই সব ভয় দূরে ঠেলে সবার উদ্দেশ্যে জ্বলাময়ী কন্ঠে তুলে ধরেন শোষকদের অাসল রুপ।যে কথাগুলো ছিল প্রাণস্পর্শী অনুপ্রেরণাদায়ক।
প্রকৃতপক্ষে পাভেলের এই মা এর মধ্য দিয়ে ফুটে উঠেছে সমগ্র রাশিয়ার নির্যাতিত রুপ।
উদাসীন অত্যাচারী শাসক যখন কশাঘাতে জাতির অন্তরকে দীর্ঘ করে ফেলে,তখন সেই জীর্ণ অন্তর থেকে রক্ত-কমলের মতো ফুটে উঠে জাতির মুক্তিরবাণী।
গোর্কির জগদ্বিখ্যাত উপন্যাস “মা” সেই অপরুপ রক্ত কমল।নির্যাতিত ও নিপিড়ীত মানবত্বের মুক্তিবাণী।
একটা সমগ্র জাতির অন্তর- বেদনার ইতিহাস এমনভাবে জগতের অার কেন ভাষায় লেখা নেই।
এই সাহিত্য নিগূঢ় অভিজ্ঞতার পূণ্যতম স্মৃতি! বেদনার মস্ত অনাচার, সমস্ত ভয়াবহতা,সমস্ত পঙ্কিলতার সব রকম তিক্ততার সীমারেখা পায়ে হেটে পার হয়ে বর্তমান যুগের সাহিত্য, গোর্কি অতি বলিষ্ঠ পুরুষকন্ঠে এই বাণী প্রচার করেছেন -তবু ঘৃণা নয়, প্রেম হোক জীবনের ধাত্রী!
এই অপরুপ বাণী এবং সব রকম গ্লানির মধ্যে মানুষের মুক্তির চরম অাশ্বাসের কথা, তার সর্বশ্রেষ্ঠ সৃষ্টি “মা” এ রুপ নিয়েছে।যদিও “মা” একান্তভাবে রাশিয়ার রাজনৈতিক জীবনের সঙ্গে সংযুক্ত এবং এই গ্রন্থের সাথে একটা জাতির মুক্তিপণের ইতিহাস সাক্ষাৎ ভাবে জড়িত,তবুও রসের ক্ষেত্রে প্রত্যেক জাতির লোক এই গ্রন্থকে অাদর করে বরণ করে নিয়েছপন।কেননা,যে বেদনায় সন্তানের জন্য মায়ের মন কাঁদে, মায়ের মনের সে বেদনা তার নিজের ছেলের জন্য হলেও, তার মধ্য দিয়ে যে মাতৃত্ব ফুটে উঠে, সেটা সকল দেশে এক।মাতৃত্বের এক অপূর্ব চিত্র ফুটে উঠেছে এই বইয়ে।

See also  ২য় শ্রেণীর গাইড বই ডাউনলোড PDF Download | Class 2 guide book pdf download

সবশেষে বলতে চাই,অামাদের গল্পের “মা” কিন্তু বাস্তব এবং পাভেলও বাস্তব।
অান্না কিরিলোভনা ছিল অামাদের মা এবং পিওতর জালোমভ ছিল অামাদের পাভেল।

“হিউম্যান বিয়িং ”
মানবসভ্যতা এক ভয়ংকর ফিতনাময় সময় পার করছে। মানুষের চতুর্দিকে এখন অসংখ্য ফিতনার মায়াজাল। শয়তান যেন তার অনুসারীদের নিয়ে পূর্ণ শক্তিতে আবির্ভূত হয়েছে সর্বময়।ফিতনার ধরন গুলোও আমরা আজ আলাদা করতে পারছি না।

ইসমাহ বিন কায়েস রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, রাসুলুল্লাহ

সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম প্রাচ্যের ফেতনা থেকে আশ্রয় প্রার্থনা করতেন। তাঁকে জিজ্ঞাসা করা হলো পাশ্চাত্যের ফেতনা কেমন হবে? তিনি বললেন তা তো হবে আরো ভয়ংকর। [1]
বুখারী (রহ.) এর শিক্ষক নুআইম বিন হাম্মাদ (রহ.) রচিত কিতাবুল ফিতান বইয়ে শেষ জামানার ফিতনাকে অন্ধ ফিতনা বলে আখ্যায়িত করা হয়েছে।
কেনো পড়বো এই বই-
উমর রাদিয়াল্লাহু আনহুর একটি বক্তব্য আলোচনা করতে গিয়ে ইবনুল কাইয়িম (রহ.) মানুষদের চার ভাগ করেন।
১.যারা ঈমান ও কুফর উভয়ই ভালোভাবে চেনে এবং তাদের কার্যক্রম সম্পর্কে অবগত। পৃথিবীতে এরাই সবচেয়ে জ্ঞানী।
২.যারা ঈমান চেনে; কিন্তু কুফর সম্পর্কে অবগত নয়; তবে ঈমানের বাইরে সবকিছু প্রত্যাখান করে।এরাও কুফর থেকে নিরাপদ।
৩.যারা কুফর বিস্তারিতভাবে জানে; কিন্তু ঈমান জানে ভাসা-ভাসা। তারা পরিপূর্ণ নিরাপদ নয়।
৪.যারা ঈমান ও কুফর কোনো পথই ভালোভাবে চেনে না। এরাই সবচেয়ে ভয়ংকর অবস্থানে আছে।[২]
তাই ঈমান ও কুফর চেনা খুবই জরুরি। এই বইটি আপনাকে ঈমান ও কুফর চেনাতে সহায়তা করবে ইনশাআল্লাহ। পাশ্চাত্যের ফিতনা সম্পর্কে সম্পূর্ণরূপে জানতে পারবেন। ইনশাআল্লাহ।পাশাপাশি খিলাফাহ পরবর্তী পরাজিত মানসিকতা থেকে আক্রমণাত্মক বিজয়ী মানসিকতা গঠনে সহায়তা করবে ইনশাআল্লাহ।

পরিশেষে ডা. শামসুল আরেফিন শক্তি ভাই, যিনি বইটির অগ্রভাগে বইটি পড়ার অভিব্যক্তি জানিয়েছেন। তিনি বইটি প্রত্যেক মুসলিম ভাইকে বইটি পড়ার পাশাপাশি সবার হাতে বইটি পৌঁছে দেওয়ার অনুরোধ করেছেন। আমরা যারা গডলেস সোসাইটিতে জেনারেল লাইনে পড়েছি তাদের জন্য বইটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। উসতায ইফতেখার সিফাত (হাফি.) কে আল্লাহ উত্তম জাযা দান করুন।

[1] মু’জামে তাবারানি, হাদিস নং ৫০১.
[2] আল ফাওয়ায়েদ লি ইমাম ইবনুল কাইয়ুম (রহ.)- ১৩৫-১৩৮।

See also  চল অন্তিক মাহমুদ pdf download | chol antik mahmud pdf download

বইঃ হিউম্যান বিয়িং শতাব্দীর বুদ্ধিবৃত্তিক দাসত্ব
লেখকঃ ইফতেখার সিফাত
নাশাত পাবলিকেশন
ধরনঃ হার্ডকভার
পৃষ্ঠাঃ ১৬০
মুদ্রিত মূল্যঃ ২২০৳

৩য় শ্রেণীর ইংরেজি গাইড pdf download | Class 3 english guide book pdf download

Click here to download

ADR Dider

This is the best site for all types of PDF downloads. We will share Bangla pdf books, Tamil pdf books, Gujarati pdf books, Hindi pdf books, Urdu pdf books, and also English pdf downloads.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
You cannot copy content of this page