Bangla islamic Books PDF

আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া ১-১৪ খন্ড pdf free download | Al Bidaya Wan Nihaya pdf free download

আজকে আমরা আপনাদের কে আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া ১-১৪ খন্ড pdf free download | Al Bidaya Wan Nihaya pdf free download লিংক দিবো।

বইঃ আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া ১-১৪ খন্ড pdf free download | Al Bidaya Wan Nihaya pdf free download

লেখকঃ মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

Size: 100 MB

আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া ১ম খণ্ড

আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া ২য় খণ্ড

আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া ৩য় খণ্ড

আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া ৪র্থ খণ্ড

আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া ৫ম খণ্ড

আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া ৬ষ্ঠ খণ্ড

আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া ৭ম খণ্ড

আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া ৮ম খণ্ড

আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া ৯ম খণ্ড

আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া ১০ম খণ্ড

বুক রিভিউ
বই : অর্থতৃষ্ণা
জনরা: স্টিমপাঙ্ক
লেখক: সুমিত বর্ধন
প্রকাশনী: কল্পবিশ্ব

অর্থতৃষ্ণা বাংলার প্রথম স্টিমপাংক থ্রিলার। বিংশ শতাব্দীর শুরুর এ এক অন্য কলকাতা। যেখানে আকাশে ওড়ে মহাকায় ব্লিম্প, রাস্তায় হেঁটে চলে কলগোলাম, বাড়ির ছাদে পাহারায় থাকে মাস্কেট হাতে ডানাওয়ালা গরুড়। সেই আশ্চর্য দুনিয়ায় পিশাচের আক্রমণে মারা যাচ্ছে একের পর এক মানুষ। ধূর্জটি আর তাঁর বন্ধু জড়িয়ে পড়ে এক বিপদজনক অভিযানে, এই রহস্য সমাধান করতে গিয়ে।

বইটি হাতে নিয়ে নতুন একটা জনরা সম্বন্ধে বেশ আগ্রহ জন্মায়। স্টিমপাঙ্ক হলো সায়েন্স ফিকশন বা কল্পবিজ্ঞানের এক বিশেষ সাব-জনরা। এর বিশেষত্ব এটি কল্পবিজ্ঞান হয়েও ভবিষ্যতমুখী না হয়ে, অতীত মুখী। এধারার অনুপ্রেরণা ভিক্টোরিয়ান বা এভোয়ার্ডিয়ান জমানার বাষ্পচালিত প্রযুক্তি ও প্রযুক্তি নির্ভর সমাজ। যার সঙ্গে মিশে নানান কল্পকথা, কখনো ম্যাজিক, কখনো বা কল্প-ইতিহাস।

ভালো দিক-

বইটি সর্বপ্রথম বাংলা সাহিত্যে স্টিমপাঙ্ক এনেছে এবং পাঠককে এ জনরা সম্পর্কে ধারণা দিয়েছে। লেখকের লেখনী ও কাহিনি পটভূমি বেশ ভালো ছিল। নতুন দ্বারা এই লেখনী পাঠকের নিকট গ্রহণযোগ্য করতে পটভূমির ভূমিকা ভালো ছিল। তার সাথে এয়ার শিপ, কলগোলাম, গড়ুর, পিশাচ, যক্ষের কল্পনা, ৎসুচিনোকো,অ্যাডামান্টাইন ইত্যাদির সন্নিবেশে গল্পটি প্রাণবন্তর হয়ে ওঠে। সেই সঙ্গে লেখকের দারুণ লেখনী পাঠকের মনে দীর্ঘদিন ‘অর্থতৃষ্ণা’ স্মরণীয় রাখবে।

মন্দ দিক-

মন্দ দিক বলতে ব্যক্তিগতভাবে গল্পের কিছু বিষয় ভালো লাগেনি। সর্বপ্রথম আসে কলগোলামের বিষয়টি। গল্পে শুরুর দিকে যখন কলগোলামের সঙ্গে পরিচিত হই তখন কলগোলামের একটি অলঙ্কর থাকলে কলগোলাম দেখতে কেমন তা কল্পনা করতে সহজ হতো। পরবর্তীতে অবশ্য অলঙ্কর ছিল, তবে অনেকটা কাহিনি পেরিয়ে যাবার পর। দ্বিতীয়ত কাহিনিতে যেমন যান্ত্রিক তত্ত্বকথা ছিল, তেমনি লেখনীও কিছুটা যান্ত্রিক ছিল। কেবল রহস্য এবং রহস্য নির্ভর বর্ণনাই ছিল গল্প জুড়ে। এছাড়া শুরুতে যে গতিতে গল্প এগিয়ে যাচ্ছিল মাঝ থেকে কেন যেন ক্রমশ দ্রুত গতিশীল হয়ে উঠছিল। উপস্থিত চরিত্র এবং রহস্য সমাধান দ্বারা স্টিমপাঙ্কের ঝাপসা ধারণা পেলেও তা পূর্ণাঙ্গ ছিল না। কোথাও যেন কমতি ছিল। কেবল রহস্য কেন্দ্রিক বর্ণনা গল্প জুড়ে থাকায় বিংশ শতকের এক নতুন কলকাতা কল্পনায় বিকশিত হতে পারেনি। এছাড়া গল্পের চরিত্র সমূহে আরেকটু সময় দেয়া হলে চরিত্রগুলো পরিপূর্ণ হতো। ©

বুক রিভিউ
বই : মেঘের বিপরীতে
লেখিকা : আতিয়া আদিবা
প্রকাশনী: তাম্রলিপি
পৃষ্ঠা: ১৪৪
জনরা: রোমান্টিক সাইকোলজিকাল থ্রিলার।

যেহেতু বইটি লেখিকার প্রথম লেখা তাই প্রথমে ভেবেছিলাম যে কিনবো না। কিন্তু পরে আর নিজেকে সামলাতে পারলাম না অবশেষে কিনেই ফেললাম বইটি। বইটির যখন আমি ৫০ নম্বর পৃষ্ঠায়, কেন জানি বিরক্ত চলে আসলো যে ধুর কি একটা বই কিনলাম কোন মজাই পাচ্ছি না পড়ে।কিন্তু ৭০ পৃষ্ঠা যখন অতিক্রম করলো ঠিক তখন থেকেই বইটিতে থ্রিলার এর গন্ধ পাওয়া শুরু করলাম। আর অপেক্ষা না করে এক নিঃশ্বাসে পড়ে ফেললাম পুরো বইটি।

প্লট: লেখিকার প্রথম লেখা হিসেবে তিনি প্লটটা খুব সুন্দর এবং অনেক ইউনিক নিয়েছেন বলা যায়। বলা যায় একটি দম্পত্তির সম্পর্কের টানপোড়নের গল্প। রেহাল আর নন্দিতা হলো গল্পের প্রধান দুটি চরিত্র। যাদেরকে নিয়েই মূলত গল্পটির প্লট। একটা সন্তান একটা পরিবারের জন্য কতোটা মূল্য রাখে, একটা দূরের সম্পর্ককে কতোটা কাছে টানতে পারে, একটা পরিবার কে কতোটা যে আনন্দ দিতে পারে, এই বিষয়গুলোই দেখানো হয়েছে। একটা সুস্থ সন্তান আল্লাহর কতো বড় নেয়ামত এটা যাদের সন্তান নেই বা হয় না তারা উপলব্ধি করতে পারে। ১ম উপন্যাস হিসেবে বলা যায় লেখিকার প্লট বিশ্লেষন ভালো।

ভালোলাগা: আগেই বলেছি যে সাইকোলজিক্যাল থ্রিলার দেখে বইটি কিনার পর যখন দেখলাম ৫০ পৃষ্ঠা পার হয়ে গেলো কোনো climax এর দেখা পেলাম না। পরে ভাবলাম আরো সামনে পড়ে দেখি। তবে ৭০ পৃষ্ঠা এর পরে এসে কিছুটা থ্রিলার এর সুবাস পাওয়া গেলো আর দেরি করলাম না। পুরোটা এক নিমিষেই নামিয়ে দিলাম। দারুণ কাহিনী এবং খুবই সুন্দর একটা এন্ডিং সবমিলিয়ে বলা যায় মোটামুটি একটা সার্থক উপন্যাস।
নন্দিতার প্রতি রেহালের অফুরান ভালোবাসা, স্বামী হিসেবে স্ত্রী কে সবসময় সাপোর্ট করে যাওয়া, সবকিছু মিলিয়েই একটা সম্পর্ক টিকিয়ে রাখা এগুলো ভালো লেগেছে। লেখিকার কিছু কথা ভালো ছিলো যে, আজকাল অফিসের পিএ কেনো মেয়ে হয়, ছেলেরা কেনো হয় না? এইরকম দু তিনটি সুন্দর প্রশ্ন তিনি পাঠকের জন্য রেখেছেন।

সমালোচনা : যেহেতু ১ম বই তাই সমালোচনার ও দাবী রাখে বইটি। ভাষা ব্যবহার অনেকটা শিথিল বলা যায়। উপমার ব্যবহার তেমন একটা চোখে পরেনি, যেটা আমার মনে হয় দরকার ছিলো। আর লেখিকা এটাকে রোমান্টিক এর পাশাপাশি সাইকোলজিক্যাল থ্রিলার বললেও থ্রিলার এর অংশ কম ছিলো। নাইফের আচরণ কে স্বাভাবিক ধরলেও, অর্চিতার আচরণকে স্বাভাবিক ধরা যায় না। রেহালের প্রতি তার অবাধ ফ্যাসিনেশন এটা একটা বিরক্তিকর বিষয় দাঁড় করিয়েছে বলে আমার মনে হয়েছে। কারণ পরবর্তীতে অর্চিতা কে যতোটা বাস্তবাদী দেখানো হয়েছে, তার পক্ষে এমন আচরণ বেমানান। গল্পের অধিকাংশ অংশে নন্দিতা কেই ফোকাস করা হয়েছে। যেখানে রেহালের ব্যাপারে আরো কিছু থাকা উচিৎ ছিলো বলে আমি মনে করি।
তাছাড়া মোটামুটি সব ঠিক আছে।

পাঠক অনুভূতি : সত্যি বলতে গেলে প্রথমে একটু বোরিং লাগলেও পরে ভালোই লেগেছে। বিশেষ করে প্লট টা অনেকটা ইউনিক মনে হয়েছে আমার কাছে। এককথায় বলা যায় উপভোগ্য। আমি যা ভেবেছিলাম এর এন্ডিং টা, আসলে তেমন হয়নি। তবে সুন্দর হয়েছে।
লেখিকার ভবিষ্যত লেখনির জন্য শুভকামনা রইলো।

কেউ কেউ বলতে পারেন নতুন লেখিকার বই কেনো কিনবেন??? আমি মনে করি নতুনদের সুযোগ দেয়া উচিৎ, যাতে করে তারা আরো ভালো কিছু দিতে পারে।
যারা বড় লেখক বা লেখিকা ছিলেন তারা একদিনে বা এক গল্পে তো আর খ্যাতি অর্জন করেন নি!! তারাও এভাবেই উঠে এসেছেন।

উপসংহার : যারা পড়তে চান পড়তে পারেন। ভালোকিছু পাবেন আশা করি। ধন্যবাদ।

আজকে আমরা আপনাদের কে আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া ১-১৪ খন্ড pdf free download | Al Bidaya Wan Nihaya pdf free download লিংক দিয়েছি।

ADR Dider

This is the best site for all types of PDF downloads. We will share Bangla pdf books, Tamil pdf books, Gujarati pdf books, Hindi pdf books, Urdu pdf books, and also English pdf downloads.

2 Comments

  1. আচ্ছালামুআলাইকুম, ১১-১৪ খন্ডের পিডিএফ লিংক কি পাওয়া যাবে?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button